সময়কাল নিউজ
সময়কাল নিউজ

হাক্কানি নেতার সঙ্গে হামিদ কারজাইয়ের বৈঠক

সময়কাল নিউজ ডেস্ক : আফগানিস্তানে তালেবান কর্মকর্তারা বলছেন, তালেবানের সঙ্গে জড়িত হাক্কানি নেটওয়ার্কের ঊর্ধ্বতন নেতা ও সামরিক কমান্ডার আনাস হাক্কানি দেশটির সাবেক প্রেসিডন্ট হামিদ কারজাইয়ের বৈঠক করেছেন।

আফগানিস্তানের সাবেক সরকারের শান্তিদূত আবদুল্লাহ আবদুল্লাহ কাবুলে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। খবর বিবিসির।

সামাজিক মাধ্যমে এই বৈঠকের ছবি ছড়িয়ে পড়েছে, তবে তাদের মধ্যে কী নিয়ে আলোচনা হয়েছে তা জানা যায়নি।

কোনো কোনো আফগান সামাজিক মাধ্যমে মন্তব্য করেছেন, যে হাক্কানিকে ২০১৬ সালে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছিল, তিনি দু’জন শীর্ষ আফগান নেতার সঙ্গে বৈঠক করছেন এই ছবি দেখে তারা বিস্মিত হয়েছেন।

হাক্কানি নেটওয়ার্কের বর্তমান প্রধান সিরাজুদ্দিন হাক্কানির ছোট ভাই আনাস হাক্কানি। হাক্কানি নেটওয়ার্ক আমেরিকার সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত গোষ্ঠী। এই গোষ্ঠী পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্ত এলাকায় তালেবানের আর্থিক ও সামরিক সম্পদের দেখভাল করে।

হাক্কানি নেটওয়ার্ক এলাকার অন্যতম শক্তিশালী উগ্রপন্থী গোষ্ঠী, যে গোষ্ঠীকে সবাই ভয় পায়। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আফগান বাহিনী ও তাদের মিত্র বাহিনীর সদস্যদের ওপর সবচেয়ে সহিংস হামলা চালিয়েছে হাক্কানি নেটওয়ার্ক।

আনাস হাক্কানিকে ২০১৯ সালে জেল থেকে মুক্তি দেওয়া হয়। আনাস হাক্কানিসহ দুজন কট্টরপন্থী জঙ্গির মুক্তির বিনিময়ে কাবুলে কর্মরত পশ্চিমা দেশের দু’জন অধ্যাপককে সেসময় মুক্তি দেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, আফগানিস্থানে ২০ বছরের সামরিক অভিযান শেষে সম্প্রতি মার্কিন সেনাদের ফিরিয়ে নেয় যুক্তরাষ্ট্র। এরপর থেকে দেশটির একের পর এক প্রদেশ দখল করে নেয় তালেবান। সর্বশেষ রোববার তালেবান বাহিনী আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের নিয়ন্ত্রণ নেয়।

তালেবানরা কাবুলের কাছাকাছি আসার পর থেকেই দেশটির সামরিক-বেসামরিক মানুষের মধ্যে দেশ ছাড়ার হিড়িক লেগে যায়। এরই মধ্যে দেশটির মার্কিন সমর্থিত প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি দেশত্যাগ করেছেন। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপের কয়েকটি দেশ তাদের দূতাবাসের কর্মী, নাগরিক ও দেশটির ন্যাটো বাহিনীর মিত্রদের কাবুল ছাড়তে সাহায্য করার জন্য সেনাদল পাঠিয়েছে। কিন্তু কাবুল বিমান বন্দরে উপচে পড়া ভিড় ও হট্টগোলে এখন বিদেশিদের অনেকে নিজ নিজ দেশে ফিরতে পারেনি।

সময়কাল নিউজ