সময়কাল নিউজ
সময়কাল নিউজ

হ্যারি কেইনের দাপটে ফাইনালে ইংল্যান্ড

সময়কাল স্পোর্টস ডেস্ক: ৫৫ বছরের দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান। ১৯৬৬ সালের বিশ্বকাপের পর এই প্রথম কোন মেজর (বিশ্বকাপ ও ইউরো কাপ)-এর ফাইনালে উঠলো ইংল্যান্ড। সেমিফাইনালে গ্যারেথ সাউথগেটের শিষ্যরা ২-১ গোলে হারালো ডেনমার্ককে। সেই সঙ্গে প্রথমবার ইউরো কাপের ফাইনালে যাওয়ার নজির গড়লো ইংল্যান্ড। ১১ জুলাই ওয়েম্বলিতে ফাইনালে মানচিনির ইতালির সামনে সাউথগেটের ইংল্যান্ড।

ওয়েম্বলিতে ডেনমার্কের বিপক্ষে পিছিয়ে পড়ে সমতা ফিরিয়েছিল ইংল্যান্ড। অতিরিক্ত সময়ে জোয়াকিম ম্যাশহলে বক্সের মধ্যে অবৈধভাবে রাহিম স্টার্লিংকে বাধা দিলে পেনাল্টি পায় ইংল্যান্ড। টিভি রিপ্লে প্রযুক্তিতে দেখা যায় রেফারি সঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছেন। ১০৪ মিনিটে পেনাল্টি থেকে এবারের ইউরোতে চতুর্থ গোলটি করে গ্যারি লিনেকারের ১০ গোলের রেকর্ড স্পর্শ করলেন ইংল্যান্ড অধিনায়ক হ্যারি কেইন। যদিও তার পেনাল্টি রুখে দিয়েছিলেন ডেনমার্কের গোলকিপার ক্যাসমার শ্মাইকেল। কিন্তু ফিরতি বল জালে জড়িয়ে দেন কেইন।

ম্যাচের ৩০ মিনিটে ড্যামসগার্ডের গোলে এগিয়ে গিয়েছিল ডেনমার্ক। অসাধারণ একটা ফ্রি-কিক দেখল গোটা ফুটবল বিশ্ব। ড্যানিশ মিডফিল্ডারের বাঁকানো শটে ইংল্যান্ডের গোলরক্ষক হাত ঠেকালেও গোল বাঁচাতে পারেননি। ১-০ গোলে এগিয়ে যায় ডেনমার্ক। ৩৯ মিনিটে ডেনমার্কের আত্মঘাতী গোলে সমতা ফেরায় ইংল্যান্ড। ডেনমার্ক অধিনায়ক বলটা নিজের ফাঁকা জালের দিকেই ঠেলে দেন। ইউরো ইতিহাসে এই প্রথম ডেনমার্ক কোনও আত্মঘাতী গোল করল। এর আগে সব ইউরো মিলিয়ে মোট ৯টি আত্মঘাতী গোল হয়েছিল।

বল দখলের লড়াইয়ে ইংল্যান্ড এগিয়ে থাকলেও দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলই সুযোগ তৈরি করেছিল। নির্ধারিত সময়ে ফল ১-১ থাকায় ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। ২০০০ সালের পর এই প্রথম ইউরোর দুটি সেমিফাইনালই অতিরিক্ত সময়ে গড়াল। শেষে বাজিমাত করে ১১ জুলাই ওয়েম্বলিতে ফাইনাল খেলার যোগ্যতা অর্জন করল হ্যারি কেইনের ইংল্যান্ড।

সময়কাল নিউজ